রুপদিয়ার সাত চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে মামলা

যশোর জেলার খবর

যশোর অফিস : যশোর সদর উপজেলার রূপদিয়ায় হোটেল নির্মাণে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে সাতজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছেন।

রোববার (১৩ জুন) মামুন হোসেন নামে এক যুবক এই মামলা করেন।

অভিযুক্তরা হলেন, সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুরের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মনিরুল ইসলাম (৩০), হাটবিলা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মো. রাসেল (২৫), জালাল মোল্লার ছেলে মুকুল হোসেন (২০), আব্দুল জলিলের ছেলে বিল্লাল হোসেন (৩২), দাউদ হোসেনের ছেলে আব্দুল্লাহ (২২), আকরাম হোসেনের ছেলে শামীম হোসেন (২০) ও সিরাজ মিস্ত্রির ছেলে ডাবলু (২২)।

রূপদিয়ার ওমর আলীর ছেলে মামুন হোসেনের অভিযোগ, তিনি বাড়ি সংলগ্ন রাস্তার পাশে নিজ জমিতে খাবারের হোটেল নির্মাণ করছেন। চলতি বছরের মে মাসের শেষের দিকে উল্লেখিত আসামিরা সেখানে যান। এর মধ্যে আসামি মনিরুল ইসলাম তাকে ডেকে তার কাছে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। তাকে হুমকি দিয়ে বলা হয়,‘এখানে নতুন দোকান নির্মাণ করছিস। এ জন্য আমাদেরকে এক লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে। এক সপ্তাহ পর এসে আমরা চাঁদার টাকা নিয়ে যাবো।’

এ ঘটনার পর গত ৭ জুন বিকেল ৩টার দিকে উল্লেখিত আসামিরা ফের সেখানে আসেন এবং দাবিকৃত চাঁদার টাকা দিতে বলেন। মামুন এ সময় চাঁদা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে আসামি মনিরুল ইসলাম ও মো. রাসেলের হুকুমে অন্য আসামিরা তাকে ও তার ভাই মাসুমকে এলোপাতাড়ি মারপিট করতে থাকে। চিৎকার চেঁচামেচি শুনে বাড়ি থেকে তার মা ফেরদৌসী, বড়বোন মামনি, ছোববোন লাবনী, ভাগ্নে হাদিউর ছুটে এলে তাদেরকেও মারপিট করা হয়। এক পর্যায়ে আসামিরা তার গলাটিপে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা চালান। এছাড়া আসামিদের ছুরিকাঘাতে তার ভাই মাসুম জখম হন।

শহিদ জয়/চারিদিক/আকাশ