কালিয়ায় জামাত নেতা বাহাউদ্দিনসহ ৩৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

অপরাধ ও আইন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের কালিয়ায় গোপন বৈঠক থেকে আটক হওয়া জামাত নেতা অধ্যক্ষ এম এইচ বাহাউদ্দিনসহ ৩৫ জনের বিরুদ্ধে নাশকতা সৃষ্টিসহ দেশে নৈরাজ্যকর ও অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে উপজেলা নড়াগাতি থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (৪ মে) রাতে থানার উপপরিদর্শক মো. নাজমুল হাসান বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে বাহাউদ্দিনসহ আটক হওয়া ৫ জামাত নেতাকর্মীকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার করে বুধবার (৫ মে) সকালে নড়াইল আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, কালিয়া উপজেলার টোনা গ্রামের মৃত সাখাওয়াত হোসেনের ছেলে উপজেলা জামাতের আমীর ও বড়দিয়া মুন্সি মানিক মিয়া কলেজের অধ্যক্ষ এম এইচ বাহাউদ্দিনের বাড়ীতে জামাতের নেতাকর্মীরা নাশকতা সৃষ্টিসহ সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন, দেশে নৈরাজ্যকর ও অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির লক্ষ্যে গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে নড়াগাতি থানার ওসির নেতৃত্বে একদল পুলিশ মঙ্গলবার বেলা ১টার দিকে বাহাউদ্দিনের বাড়ীতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বাহাউদ্দিনসহ উপজেলার খাশিয়াল গ্রামের আ. মালেক হোসেনের ছেলে ও নড়াগাতী থানা জামায়াত ইসলামী আমীর মো. আলমগীর হোসেন (৪৮), টোনা গ্রামের মাওলানা মাওদুদুল হকের ছেলে নিয়ামতউল্লাহ (১৯) ও ফাউজুল্লা (২৩) এবং লোহগড়া উপজেলার সুজাপুর গ্রামের মৃত আ. সালামের ছেলে ও জেলা জামায়াতের রোকন আবুল বাসারকে (৪২), আটক করে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১৩ হাজার ৮০০ টাকা, বিপল পরিমাণ জিহাদী বই, চাঁদা আদায়ের রশিদ, সংগঠনের মাসিক রিপোর্ট ও দুইটি ল্যাপটপ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় আটক ৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ২০/৩০ জনকে আসামী করে নাশকতা সৃষ্টিসহ দেশে নৈরাজ্যকর ও অস্থিতিশীল পরিন্থিতি তৈরীর চেষ্টার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

নড়াগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রোকসানা খাতুন বলেছেন, গোপন বৈঠক থেকে আটক ৫ জামাত নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাতনামা ২০/৩০ জনকে আসামী করে একটি মামলা দাযের হয়েছে। আটক ৫ জনকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার করে বুধবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। পলাতক আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এম এম ওমর ফারুক/চারিদিক/সাকিব