গফরগাঁওয়ে একদিনে দুই আত্মহত্যা!

দেশের খবর

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অনিক (১৭) ও আরিফ (৩২) নামে দুইজনের আত্মতহ্যার পৃথক ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার পাগলা থানাধীন পাইথল ইউনিয়নের ডোবাইল নামা পাড়া গ্রামে প্রেম ঘঠিত কারণে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অনিক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

অন্যদিকে, পৌর শহরের ৪নং ওয়ার্ড চর ষোলহাসিয়া এলাকায় লেপ-তোষক তৈরির কারিগর আরিফ স্ত্রীর সাথে রাগ করে বিষ করেন। শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) দুপুরে আরিফ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাগলা থানাধীন পাইথল ইউনিয়নের ডোবাইল নামা পাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে স্থানীয় বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অনিক বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) দিবাগত রাতে ঘরের দরজা বন্ধ করে গলায় দরি বেধে ফাঁসিতে আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে পাগলা থানা পুলিশ দরজা ভেঙে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

একই রাত ১টার দিকে পৌর শহরের চার নম্বর ওয়ার্ড চর ষোলহাসিয়া এলাকার মৃত মফিজুলের ছেলে আরিফ স্ত্রীর সাথে রাগ করে বিষ পান করে। পরিবারের লোকজন দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে শুক্রবার দুপুরে চিকিৎসারত অবস্থায় আরিফ মারা যায়। পরে কোতোয়ালী পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।

পৌর কাউন্সিলার সোহরাব উদ্দিন আরিফের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘দুঃখজনক ঘটনা। তবে ছেলেটি খুব রাগী ছিল।’

পাগলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশেদুজ্জামান বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কি কারণে ছেলেটি আত্মহত্যা করেছে পরিবারের লোকজনও বলতে পারেন না। তবে প্রেম ঘটিত কোন কারণে ছেলেটি এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নজরুল ইসলাম/চারিদিক/সাকিব