সোমাকে বাঁচাতে দরকার ৮ লাখ টাকা

ফিচার যশোর জেলার খবর

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন (এমএম) কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের মাস্টার্সের মেধাবী শিক্ষার্থী সোমা রায় (২৬) মরণব্যাধি ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত। তার উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে নেওয়া প্রয়োজন। এতে খরচ হবে ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা। কিন্তু তার দরিদ্র বাবার পক্ষে এত টাকা সংগ্রহ করা অসম্ভব। তাই তার পরিবার ও সহপাঠীদের মনে নেমে এসেছে বিষাদের ছায়া।

সোমার বাবা শহরের একটি সুপার শপে সামান্য বেতনে চাকরি করেন। তার মা সবিতা রায় গৃহিণী। তিনিও অসুস্থ। একমাত্র ছোট ভাই এবার এইচএসসি পাস করেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, যশোর শহরের বেজপাড়া পিয়ারী মোহন রোড এলাকার বাসিন্দা অশোক রায় ও সবিতা রায় দম্পতির একমাত্র মেয়ে। পড়াশোনার পাশাপাশি নিয়মিত হোম টিউটর, দক্ষ কম্পিউটার প্রশিক্ষক এবং গ্রামীণফোন কাস্টমার কেয়ারের একজন সার্ভিস হোল্ডার হিসেবে সংসারের হাল ধরেছিলেন। তার ইচ্ছা ছিল পড়াশোনা শেষে শিক্ষকতা করবেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন আজ ভেঙে পড়ার উপক্রম। কারণ, তিনি মরণব্যাধি ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত।

আরও জানা যায়, চিকিৎসকেরা বলছেন দ্রুত অস্ত্রোপচার করলে সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যেতে বলেছেন তারা। এতে প্রয়োজন ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা। সোমার সুচিকিৎসার জন্য এত টাকা সংগ্রহ করতে না পেরে সমাজের বিত্তবান মানুষের কাছে সহযোগিতা চেয়েছে পরিবারটি।

যশোর ও খুলনায় চিকিৎসা শেষ করে সোমা রায় বর্তমানে চিকিৎসকের পরামর্শে বাড়িতেই চিকিৎসাধীন আছেন।

সোমার বাবা অশোক রায় বলেন, নিজেরা নিরক্ষর হলেও দুই ছেলে মেয়েকে শিক্ষিত করেছি। তাদের মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন ছিল। সোমা খুব মেধাবী। সে সংসারের হাল ধরেছিল। হঠাৎ তার অসুস্থতা সব স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হওয়ার উপক্রম হয়েছে। অসুস্থতা নিয়ে মাস্টার্স পরীক্ষা দিয়েছে।

তিনি বলেন, গত মাসে হঠাৎ বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ধরা পড়ে তার মরণব্যাধি ব্রেইন টিউমার। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন দ্রুত অস্ত্রোপচার করা প্রয়োজন। কিন্তু আমার পক্ষে এত টাকা সংগ্রহ করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। সোমাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবান ও সহৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করছি।

সাহায্য করতে চাইলে টাকা পাঠাতে পারবেন এই নম্বরে- সোমার বাবা অশোক রায় : ০১৯২৬৯৪৫৪৭৫, সোমা রায় : ১৬৩১৫১০১৯৫৯৮৪, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক। বিকাশ বা নগদ : ০১৯৪১৩৪৬৩৪৪।

চারিদিক/সাকিব