মোল্লাহাটে আরও এক হেফাজত কর্মী গ্রেপ্তার

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর

বাগেরহাট (মোল্লাহাট) প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোল্লহাটে পুলিশের উপর হেফাজত কর্মীদের হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার অন্যতম আসামী শেরজান মোল্লাকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব সদস্যরা।

শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সকালে র‌্যাব-৬ থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় উপজেলার উদয়পুর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার শেরজান মোল্লা উদয়পুর গ্রামের মৃত ইউনুস মোল্লার ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) রাত ৮টায় শেরজান মোল্লাকে মোল্লাহাট থানায় হস্তান্তর করেছে র‌্যাব। এ ঘটনায় মোট চারজন হেফাজত কর্র্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

র‌্যাবের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পুলিশের উপর হেফাজত কর্মীদের হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের এর ঘটনার সাথে জড়িত আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে র‌্যাব-৬। এরই অংশ হিসাবে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬ এর একটি দল বৃহস্পতিবার বিকেলে অভিযান শুরু করে। এ সময় মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর গ্রাম থেকে শেরজন মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৯ এপ্রিল বেলা ১১টার মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর আড়ুয়াকান্দি গ্রামস্থ জামিয়া হালিমিয়া মাদ্রাসার কিছুসংখ্যক হেফাজতপন্থী ছাত্র শিক্ষক এবং বহিরাগত কিছুসংখ্যক হেফাজত সমর্থক বিক্ষোভ মিছিল করার জন্য মোল্লাহাটের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মোড়ে একত্রিত হয়ে সংগঠনের নেতা মামুনুল হকের মুক্তির বাদীতে শ্লোগান দিতে থাকে। এ সময় মোল্লাহাট থানা পুলিশ হেফাজত কর্মীদের শ্লোগান এবং উচ্ছশৃঙ্খল আচারণ করতে নিষেধ করে। এ সময় হেফাজত কর্মীরা আকস্মিকভাবে মোল্লাহাট থানা পুলিশের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। তাদের ইট পাটকেলের আঘাতে মোল্লাহাট থানার ওসি কাজী গোলাম কবীরসহ ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়।

পরবর্তীতে, মোল্লাহাট থানা এসআই শাহিনুর রহমান গোলদার বাদী হয়ে ২৬ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত পরিচয় আরও অনেক ব্যক্তিকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

শেখ শাহিনুর ইসলাম/চারিদিক/সাকিব