বাঁচানো গেলোনা স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ সেই গৃহবধূ হীরা বেগমকে

অপরাধ ও আইন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর যশোর জেলার খবর

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি।।

যশোরের অভয়নগরে স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ সেই গৃহবধূ হিরা বেগম (৩৩) মারা গেছেন। ৬ দিন মৃত্যুর সাথে যুদ্ধ করে বুধবার (২ ডিসেম্বর) সকালে ঢাকায় নেয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। হিরা বেগম এ উপজেলার চাকই মরিচা গ্রামের বিল্লাল সরদারের স্ত্রী।

নিহত হিরা বেগমের ভাই নয়ন সরদার মুঠোফোনে জানান, ‘মঙ্গলবার রাতে আমার বোনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের ডাক্তাররা উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেন। বুধবার সকালে ঢাকায় নেয়ার পথে মাওয়াঘাট পার হওয়ার পর আমার বোন মারা যায়’।

নিহত হিরা বেগমের মা উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামের মজিদা বেগম মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ শুনে কাঁদতে কাঁদতে বলেন, চাকই গরুহাটখোলা সংলগ্ন গ্রামের আক্কাচ আলী সরদারের ছেলে বিল্লাল সরদার আমার  মেয়েকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। আমি বিল্লালের ফাঁসি দাবি করছি।

এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল বলেন, মঙ্গলবার রাতে বিল্লাল সরদারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। আসামি আটকে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ নভেম্বর সকালে উপজেলার চাকই মরিচা গ্রামে পারিবারিক কোন্দলে স্ত্রী হিরা বেগমের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায় স্বামী বিল্লাল সরদার। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। দীর্ঘ ৬ দিন চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বুধবার সকালে ঢাকায় নেয়ার পথে হিরা বেগমের মৃত্যু হয়।