দীর্ঘ ২০ বছরের গ্রাম্য বিরোধ মেটালেন  এমপি রনজিৎ রায়

অপরাধ ও আইন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর যশোর জেলার খবর রাজনীতি

স্টাফ রিপোর্টার।।

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বন্দবিলা ইউনিয়নের সেকেন্দারপুর-চাঁপাতলা গ্রামের অনুকুল চৌধুরী, কৃষ্ণপদ ও হরিপদ বিশ্বাসের মধ্যে সামাজিক বিরোধ দীর্ঘ ২০ বছরের। পৃথকভাবে তিনটি পক্ষের নেতৃত্ব দেন তারা। দীর্ঘ এ সময়ের মধ্যে তারা কখনো এক হননি। আচার-অনুষ্ঠানেও তাদের মধ্যে ছিল মতবিরোধ। সম্প্রতি তাদের এই ‘বিরোধ’ মিমাংসার উদ্যোগী হন বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য রনজিৎ রায়।

সোমবার (২ নভেম্বর)  বিকেল ৪ টায় বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে স্থানীয় হরিবাসর মন্দির প্রাঙ্গণে এ উপলক্ষে এক বৈঠকের আয়োজন করা হয়। আর এই বৈঠক আহবান করেন রনজিৎ রায় এমপি নিজেই। বৈঠকে গ্রামের বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ উপস্থিত হন। উপস্থিত সকলেই তাদের স্বাধীন মত প্রকাশ করার সুযোগ পান। একই সাথে দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত ক্ষোভ পৃথকভাবে প্রকাশ করেন অনুকুল,কৃষ্ণপদ ও হরিপদ।

যুক্তিতর্ক শেষে তাদের প্রিয় নেতা সংসদ সদস্য রনজিৎ রায়ের নির্দেশনায় দীর্ঘদিনের বিরোধ ভুলে গিয়ে একে অপরের সাথে হাতমেলান।

এ সময় সংসদ সদস্য রনজিৎ রায় গ্রামবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, হিংসা-বিদ্বেষ কখনোই শান্তি এনে দিতে পারেনা,বর্বরতার দিকে ঠেলে দেয়। আপনারা তার উদহারণ। দীর্ঘ ২০ বছরের সামাজিক বিরোধের ফলে তিন পক্ষই বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। এখন থেকে আপনারা সব দ্বন্দ ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এলাকার উন্নয়নে কাজ করবেন। সেই সাথে পরস্পরের প্রতি সহমর্মিতা দেখাবেন, সহনশীল হবেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা বাসুদেব কুমার, ত্রিশংকর বিশ্বাস, ওহিদুর রহমান, শংকর দাস, অঞ্জন রায়,উপজেলা যুবলীগ নেতা রুবেল রানা ও সঞ্জিত কুমার বিশ্বাস, উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সদস্য লিন্টু রায়, রায়পুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শেখ হুমায়ুন রেজা তুষার প্রমুখ।