যবিপ্রবি কর্মচারী সমিতির নির্বাচন আজ

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল যশোর জেলার খবর

যবিপ্রবি প্রতিনিধি।।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) কর্মচারী সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন আজ। আজ মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকাল ১০ টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব অ্যাকাডেমিক ভবনের গ্যালারীতে সকল ভোটারদের উপস্তিতিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এবারের নির্বাচনে ১১ পদের বিপরীতে ২৬ জন প্রার্থী প্রতিযোগিতা করছেন।

নির্বাচনে সভাপতি পদে রেজিষ্ট্রার দপ্তরের অফিস সহকারী ও কাম কম্পিউটার অপারেটর অনুপ কুমার বড়াল, সিনিয়র অফিস সহায়ক ফারুক হোসেন, বাস হেলপার রমিজ উদ্দিন, ল্যাব টেকনিশিয়ান আসাদুজ্জামান বাবু, প্লাম্বার সুপারভাইজার শওকত ইসলাম সবুজ, সিনিয়র ল্যাব অ্যাটেনডেন্ট খায়রুল ইসলাম সহ মোট ছয়জন প্রতিযোগিতা করবেন। সাধারণ সম্পাদক পদে সিনিয়র অর্ডালী পিয়ন কে. এম আরিফুজ্জামান সোহাগ, জেষ্ঠ্য নিরাপত্তা প্রহরী বদিউজ্জামান বাদল ও সিনিয়র ফিল্ড অ্যাটেনডেন্ট এনামুল হক প্রতিযোগিতা করছেন।

এছাড়া সহ-সভাপতি পদে দুই পদের বিপরীতে মেশিন অপারেটর রুমের রহমান রনি, অফিস সহকারী ও কাম কম্পিউটার অপারেটর এস এম রাজু আহমেদ, সিনিয়র ইলেকট্রিশিয়ান আমিনুল ইসলাম, সিনিয়র অফিস সহায়ক টিপু সুলতান; যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদে সিনিয়র মালী ইমদাদুল হক টুটুল, ল্যাব টেকনিশিয়ান তিতাস মিয়া; ধর্ম সাহিত্য ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে ল্যাব টেকনিশিয়ান আরাফাতুজ্জামান, গাড়িচালক গোলাম মোস্তফা লাল্টু; ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে অফিস সহায়ক আনোয়ার জাহিদ, টেলিফোন লাইনম্যান আশিকুর রহমান পরাগ; মহিলা বিষয়ক সম্পাদক পদে সিনিয়র অফিস সহায়ক রুমানা পারভীন, ল্যাব টেকনিশিয়ান অনামিকা বিশ্বাস; নির্বাহী সদস্য পদে সিনিয়র মেশিন অপারেটর আসফিকুর রহমান, সিনিয়র অফিস সহায়ক বিল্লাল হোসেন, নিরাপত্তা সুপারভাইজার আরশাদ আলী, ফটোগ্রাফার রাজিব কুমার মন্ডল ও অফিস সহায়ক সোহাগ মিলন প্রমুখ।

এবারের কর্মচারী সমিতির নির্বাচনে বিপুল সংখ্যক প্রার্থী প্রতিযোগিতা করছেন। প্রার্থীরা তাদের ভোট নিশ্চিত করতে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন এমনকি ভোটারদের বাড়িতে পর্যন্ত যাচ্ছেন। ভোট সংগ্রহে প্রার্থীরা ক্যাম্পাসসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে ক্যাম্পেইন করছেন। অনেকে ভোটের প্রার্থী হতে স্থানীয় রাজনৈতিক ছত্রছায়াকে কাজে লাগাচ্ছেন তাদের বিজয় নিশ্চিত করতে। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রার্থী তার প্রতিপক্ষ প্রার্থীকে নিয়ে নানারকম স্ট্যাটাস ও মন্তব্য করতে দেখা যাচ্ছে। কর্মচারীদের নির্বাচনী প্রচারণায় মাঝে মাঝে শিক্ষক-কর্মকর্তাদেরও দেখা মিলছে। আগামীকাল ভোটগ্রহণের পর ফরাফল প্রদানের মাধ্যমে এ ভোট অনুষ্ঠান শেষ হবে।