মাদারীপুর আবহাওয়া অফিস নানা সমস্যায় জর্জরিত

দেশের খবর

তানমিরা সিদ্দিকা জেবু, মাদারীপুর : মাদারীপুর জেলার একমাত্র আবহাওয়া অফিসের ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে। এর ফলে স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে অফিসটি নানা সমস্যার ভেতর দিয়ে অতিবাহিত হলেও কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় সমস্যা নিরসন হচ্ছে না। ফলে জনসাধারণ কাঙ্খিত সেবা পেতে বঞ্চিত হচ্ছে। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিরাপত্তাহীনতায় পেশাগত দায়িত্ব পালনে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

এছাড়াও নির্জন স্থান ও অপরিচ্ছন্নতার কারণে ভবন এলাকা মাদকসেবীদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

মাদারীপুর আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১৯৭৪ সালে শহরের কুলপদ্বীর বকুলতলায় তৎকালীন হিন্দু জমিদার বলরাম সাহার পুরনো ভবনসহ ১ একর ৩৪ শতাংশ জমি ক্রয় করা হয়। সেই পুরনো ভবননেই আবহাওয়া অফিস হিসেবে কার্যক্রম শুরু হয়। তখন থেকে আজও ওই ভবনেই চলছে অফিসের কাজকর্ম। দীর্ঘদিনের পুরনো হওয়ায় ভবনটি ক্রমশ ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। মূল ভবনের সামনে সংযুক্ত ৪০ ফুটের তিন কক্ষ বিশিষ্ট একটি ছোট ভবন ১৯৮০ সালে সরকারিভাবে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। পরে ভবন অপসারণের জন্য সরকারিভাবে টেন্ডার আহবান করা হয়। তবে যথাযথ মুল্য না পাওয়ার আশংকায় পরিত্যক্ত ওই ভবন ভেঙ্গে ফেলা হয়নি। এছাড়াও আবহাওয়া অফিসের মূল ভবনের মেঝে স্বাস্থ্যসম্মত না হওয়ায় মেঝের ১টি কক্ষে এবং দোতলায় সব কাজকর্ম করতে হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের।

সম্প্রতি ভবনের বাইরে রং করা হলেও মূল ভবনের অনেকাংশে ফাটল দেখা দিয়েছে। ছাদের পলেস্তরা খসে খসে পড়ছে। ভেতরে দেওয়ালের রং উঠে গিয়ে বিবর্ণ ও স্যাতস্যাতে হয়ে গেছে। বৃষ্টির দিনে ছাদ চুইয়ে পানি পড়ে অফিসের মূল্যবান যন্ত্রপাতি ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ভিজে নষ্ট হয়ে যায়। মুল ভবনটিও পরিত্যক্ত ঘোষণা করা না হলেও এ ভবনে অফিসিয়াল কাজকর্ম করা ঝুঁর্কিপুর্ণ হয়ে পড়েছে। আতংকের মধ্যে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাজকর্ম করতে হয়।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, শহরের নির্জন পরিবেশে অবস্থিত এ আবহাওয়া অফিসের এলাকায় বিকেলে ও সন্ধ্যার পরে মাদকসেবীদের আড্ডা বসে। রাতে তারা মদ-গাঁজা সেবন করার ফলে আবহাওয়া অফিস এলাকাটি মাদকসেবীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। কেউ তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতেও সাহস পায় না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মচারী বলেন, ‘সন্ধ্যার পর এখানে মাদকসেবীরা মদ-গাঁজার আসর বসায়। এছাড়াও ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় আমাদের কাজ করতে নানা সমস্যায় পড়তে হয়।’

মাদারীপুর আবহাওয়া অফিসের অফিস ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘বর্তমানে আবহাওয়া অফিসের ৮ জনের পদ থাকলেও কর্মরত আছে ৫ জন। এর মধ্যে বর্তমানে ১ জন অসুস্থ্য। চতুর্থ শ্রেণীর কোন কর্মচারী নেই। নিরাপত্তা প্রহরী না থাকায় অফিসের নিরাপত্তার জন্য সার্বক্ষণিক প্রধান ফটক বন্ধ রাখতে হয়। পরিচ্ছন্নকর্মী না থাকায় অফিসের ভেতর-বাইরে অপরিচ্ছন্ন থাকে। বাইরে চলাচলের রাস্তা পরিস্কার না করায় ঝোপ জঙ্গল তৈরী হওয়ায় বিষাক্ত সাপের আতংক রয়েছে।’

মনিরুজ্জামান আরও বলেন, ‘নতুন ভবন নির্মাণের জন্য অনেকবার ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছি। কিন্তু আজও পর্যন্ত তার কোন ফল পাওয়া যায়নি।’

চারিদিক/সাকিব