শৈলকুপায় পুলিশের ‘ওপেন হাউজ ডে’ অনুষ্ঠিত

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ‘মুজিববর্ষের শ্লোগান, পুলিশ হবে জনতার’ এই শ্লোগানে ঝিনাইদহের শৈলকুপা থানা চত্বরে এক ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ঝিনাইদহ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মুনতাসিরুল ইসলাম ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শৈলকুপা সার্কেল) মো. আরিফুল ইসলাম, শৈলকুপা থানা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মতিয়ার রহমান, পৌরমেয়র কাজী আশরাফুল আজম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুন্নবি কালু, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মকবুল হোসেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবেদ আলী, নায়েব আলী জোয়ার্দার, সাব্দার হোসেন মোল্লা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার বলেন, ‘সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করা হয়েছে। সন্ত্রাস ও মাদকের সাথে আমাদের কোন আপোষ নেই। সে যে দলেরই হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। মাদকের সাথে পুলিশের কোনো সদস্য যদি জড়িত থাকে তাহলে তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে। আপনারা সবাই সচেতন হোন।সন্ত্রাস ও মাদকের এই ভয়াল ছোবল থেকে আমাদের সন্তানদের রক্ষা করতে হবে। মাদক ব্যবসায়ীদের ঘুমাতে দেওয়া হবে না। সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আমরা কাউকে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করতে দিব না এবং আমার কোনো পুলিশ সদস্য সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত থাকবে না। আমি শৈলকুপা থানা থেকে মাদক নির্মূল এর কার্যক্রম শুরু করতে চাই। আমাদের উপর আস্থা রাখুন। আমাদের দায়িত্ব এই সোনার বাংলার মানুষকে সোনার মানুষ হিসেবে তৈরি করা।’

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মোস্তফা আরিফ রেজা মন্নু,কাউন্সিলর মুসা খাঁন,চাঁদ আলী মেম্বর,শহিদুল ইসলাম,শেখ সাদী,জাকির হোসেন,আফরোজা নাসরিন লিপি,মুক্তার আহমেদ মৃধা,আব্দুল আওয়াল,শামিম হোসেন,আমিরুল ইসলাম, গোলাম সরোয়ার প্রমুখ।

ওপেন হাউজ ডে’র অনুষ্ঠানে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে পুলিশ ও জনগণের ভূমিকা, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, ট্রাফিক সচেতনতা ও মাদক বিরোধী আলোচনা করা হয়। সেই সাথে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে যেকোন সংবাদ পুলিশকে জানিয়ে সহযোগিতার আহবান জানানো হয়। এছাড়াও সমাজের অপরাধ দমনে পুলিশের পাশাপাশি জনগণের কি রকম ভূমিকা নেয়া উচিত সে সম্পর্কে মতামত শোনা হয়।

এ সময় অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, সাংবাদিক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও জনসাধারণসহ প্রায় ৫০০ শতাধিক লোক উপস্থিত ছিলেন।

চারিদিক/এম