নাতিশাকে বাঁচাতে প্রয়োজন দেড় লাখ টাকা !

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর যশোর জেলার খবর

এসএম স্বপন, বেনাপোল (যশোর)।।

প্রতিবন্ধী নাতিশা দরিদ্র এক পরিবারের সন্তান। ঝিকরগাছা কৃষ্ণনগর মন্ত্রীপাড়ার শহিদুল ইসলামের মেয়ে।

নাতিশা আক্রান্ত CP বা সেরেরিবাল পালসি নামে এক রোগে আক্রান্ত। এই রোগে আক্রান্তদের ব্রেনের অনেক কোষ নষ্ট থাকে। যার ফলে তারা অনেকেই উঠে বসতে পারেনা, হাঁটতে পারেনা, কথা বলতে পারেনা।এমনকি হাত-পাও স্বাভাবিক ভাবে নাড়াচাড়া করতে পারেনা। আর এসব লক্ষণগুলোর সবই নাতিশার মধ্যে বিদ্যমান। নাতিশার পরিবারের একমাত্র উর্পাজনকারী দরিদ্র পিতা তার সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে আজ নিঃস্ব। ফলে বন্ধ হয়ে গেছে নাতিশার চিকিৎসা।

নাতিশার পিতা শহিদুল ইসলাম বলেন, তিনি পেশায় একজন লেবার। সারাদিন লেবারী করে যা পায় তাই দিয়ে ঠিকমতই সংসারের খাওয়া জোটে না। এই উপার্জন দিয়ে মেয়ের চিকিৎসা করাচ্ছেন। এ পর্যন্ত তিনি মেয়ের  চিকিৎসায় খরচ করেছেন দুই লাখ টাকা। কিন্তু এখন আর তার পক্ষে মেয়ের চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, বর্তমানে নাতিশার খাওয়া দাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। তার মেরুদন্ডের হাঁড় ক্ষয় হয়ে যাচ্ছে। ব্যথার কারণে সে এখন সারাদিন কান্নাকাটি করে। ডাক্তার বলেছে তাকে মোটামুটি সুস্থ করে তুলতে এখন প্রয়োজন প্রায় দেড় লক্ষ টাকা। তাই তিনি সমাজের দানশীলদের প্রতি নিজের প্রতিবন্ধী মেয়ের চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে আকুল আবেদন জানিয়েছেন। যাতে মেয়েকে তিনি সুস্থ করে তুলতে পারেন। নাতিশাকে বাঁচাতে সাহায্য পাঠাবার ঠিকানা- তার পিতার বিকাশ নং-০১৯৫৩৩৫০৯৯২। এছাড়া ইসলামী ব্যাংক, ঝিকরগাছা শাখা হিসাব নং-২০৫০১৬০০২০৪২৪৭৪১৬।