‘সন্ত্রাসী’ বদিয়ার বাহিনীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

অপরাধ ও আইন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল যশোর জেলার খবর

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি।।

যশোরের অভয়নগরে একাধিক মামলার আসামী জামায়াত নেতা ‘সন্ত্রাসী’ বদিয়ার বাহিনীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।শনিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে নওয়াপাড়া প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সেম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নওয়াপাড়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ভাঙ্গাগেট বাজার কমিটির একাধিকবার নির্বাচিত সভাপতি মশরহাটী গ্রামের গোলাম রানা।

তিনি তাঁর লিখিত বক্তব্যে বলেন, জামায়াত নেতা ও নওয়াপাড়া সিডল টেক্সটাইল মিল সিবিএর যুগ্ম সম্পাদক বদিয়ার ও তাঁর বাহিনীর অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। সন্ত্রাস, ছিনতাই, মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। বদিয়ার সহ তাঁর বাহিনীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হলেও রহস্যজনক কারণে পুলিশ তাকে আটক না করায় সে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, বদিয়ারের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে পঙ্গুত্ববরণ করেছে মনিরুজ্জামান নামে এক ব্যক্তি। জেসমিন নামে এক গৃহবধুকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় আব্দুল মতিন নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে পা ভেঙ্গে দিয়েছে। ২০০৫ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত সরকার বিরোধী আন্দোলনে জামায়াত নেতা বদিয়ার ও তাঁর বাহিনী উপজেলার প্রেমবাগ, মাগুরা, চেঙ্গুটিয়া ও ভাঙ্গাগেট এলাকায় পেট্রোল বোমার বিষ্ফোরণ ঘটিয়েছিল। সরকার পরিবর্তনের সাথে সাথে বদিয়ার ও তাঁর বাহিনী স্থানীয় আওয়ামী লীগে যোগদান করে এলাকায় পূনরায় চাঁদাবাজী, ধর্ষণ, ছিনতাই, বোমাবাজী ও সন্ত্রাসী কর্মকাÐ শুরু করে। এ ঘটনায় অভয়নগর থানায় একাধিক মামলা আছে। এছাড়া ভৈরব সেতুতে আগত দর্শনার্থীদের বিভিন্ন হয়রানি করার অভিযোগও আছে বদিয়ারের বিরুদ্ধে। গত ২৩ জুলাই সিডল টেক্সটাইল মিলের দুই নারী শ্রমিক ধর্ষনের দায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা আছে। এই বদিয়ার ও তাঁর বাহিনীর বিরুদ্ধে আমি বার বার প্রতিবাদ করায় গত ২৪ সেপ্টেম্বর বিকালে বাহিনী প্রধান বদিয়ার, তারঁ সহযোগি কামরুল, রতন, আসাদ, জহির, মেহেদী সহ অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা দেশিয় অস্ত্র সহকারে আমার বাড়ির মধ্যে আমার ছেলে জিহাদ কামালকে হত্যার উদ্দেশ্যে বোমা নিক্ষেপ করে বিষ্ফোরণ ঘটায়। এঘটনার পর আমি নিজে বাদি হয়ে অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের করি। দুঃখের বিষয় অদ্যবধি বদিয়ার ও তাঁর বাহিনীর একজনও পুলিশের হাতে আটক হয়নি। যে কারণে বদিয়ার ও তার বাহিনীর লোকেরা প্রতিনিয়ত আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি প্রদান করে চলেছে। ফলে আমি আমার পরিবার নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছি।

তিনি সংবাদ সম্মেলনের মধ্যদিয়ে সন্ত্রাসী বদিয়ার ও তাঁর বাহিনীর সদস্যদের দ্রুত গ্রেপ্তার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, গোলাম রানার স্ত্রী পারভীন নাহার, মেয়ে নাসরিন সুলতানা, ছেলের বৌ খুকুমনি, ভাইপো নাদের আলী, ভাগ্নে আজমল হোসেন, ভাই সেলিম খা, অহিদুল ইসলাম, ইশারত বিশ্বাস ইশা প্রমুখ।