যশোরে এমকে পরিবহনের বাসে তরুণীকে গণধর্ষণ!

অপরাধ ও আইন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর ব্রেকিং নিউজ যশোর জেলার খবর

যশোর প্রতিনিধি।।

যশোরে পরিবহনের মধ্যে এক তরুণী গনধর্ষণের শিকার হয়েছে। পুলিশ ধর্ষক, পরিবহনের হেলপার মনিরুল ইসলামকে আটক করেছে। সে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কাশিমপুর গ্রামের ওহিদুলের ছেলে এবং এমকে পরিবহনের হেলপার।মনিরুল যশোর সদর উপজেলার রামনগর ধোপাপাড়ার শহিদুলের বাড়ির  ভাড়াটিয়া।

পুলিশ জানায়, মাগুরার শালিখা উপজেলার   শতখালী এলাকার এক তরুণী বৃহস্পতিবার ( ৮অক্টোবর) বিকেল ৪ টার দিকে রাজশাহী থেকে যশোরে আসার জন্য এমকে পরিবহনে ওঠে। রাত  সাড়ে ১১ টার দিকে যশোরে নেমে পূর্ব পরিচিত মনিরুলকে ফোন দেয়।

রাত গভীর হওয়ায় ওই তরুণী তার নিজ বাড়িতে যেতে না পারায় মনিরুলের সাথে শহরের কোল্ড স্টোরের সামনে এমকে পরিবহনের ভিতরে অবস্থান করে। বৃহস্পতিবার (৯ অক্টোবার) রাত দেড়টার দিকে  মনিরুল তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এ ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীরা পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ মনিরুলকে আটক করে।ওই তরুণীকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে দেয় তারা।

এদিকে ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী জানায়,  বাসের হেলপার রাতে তাকে পানীয় খেতে দেয়। পরে সে অচেতন হয়ে পড়ে। গভীর রাতে তার চেতনা ফিরে আসলে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে সে বুঝতে পারে। বাসের ড্রাইভার ও হেলপার তাকে ধর্ষণ করেছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আরিফ আহমেদ জানান, ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে ভর্তি তরুণীর অবস্থা এখন ভাল। পরীক্ষার পর বিস্তারিত জানা যাবে।যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ওসি  মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বাসের মধ্যে তরুণী ধর্ষণের অভিযোগে বাসের হেলপার আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে  জানান, এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৬জন পরিবহন শ্রমিককে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।