খেলতে গিয়ে কবজি খোয়াল তানভীর

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দেশের খবর

রাশেদ জামা,লোহাগড়া (নড়াইল)।।

খেলতে গিয়ে হাতের কবজি হারাল শিশু তানভীর (৮)। আজ মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ধানের খড় ছাঁটাই মেশিনের ভেতর না বুঝে হাত ঢুকিয়ে দিলে বাম হাতের কবজি শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তানভীরের। পিতা দরিদ্র কৃষক হওয়ায় টাকার অভাবে অসুস্থ শিশুটির চিকিৎসা করাতে পারবেন কিনা-তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

গ্রামবাসী ও পারিবারিক সূত্র জানা যায়, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ধোপাদহ গ্রামের দরিদ্র কৃষক  রবিউল ইসলামের ছেলে তানভীর। মা থেকেও কাছে নেই, রয়েছেন অন্যের ঘরে। পিতা সংসার চালাতে কৃষি কাজসহ মাছ শিকার করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে ধোপাদহ গ্রামের শিশুটির বাড়ির পাশে ধানের খড় ছাঁটাই মেশিনে কাজ চলছিল। হঠাৎ খেলার ছলে তানভীর না বুঝে মেশিনের ভেতর হাত ঢুকিয়ে দিলে তার বাম হাতের কবজি শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

 

স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাতের বিচ্ছিন্ন অংশ বাদে লোহাগড়া হাসপাতালে নিয়ে যায়। জরুরী বিভাগের ডাক্তার নাইমা আক্তার শান্তা শিশুর পরিবারকে জানান, দ্রুত বিচ্ছিন্ন হওয়া হাতের অংশ নিয়ে ভালো হাসপাতালে গেলে ওই হাত জোড়া লাগানো সম্ভব। খবর পেয়ে শিশুর আত্মীয়-স্বজন মেশিনের মধ্য থেকে হাতের বিচ্ছিন্ন অংশ বের করে নিয়ে দ্রুত হাসপাতালে পৌঁছায়। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শিশুটিকে যশোর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

 

সূত্র জানায়, হাসপাতালে আনার পর শিশুর চাচাতো ভাই আহাদের কাছে ছিল ১২০০ টাকা, আরেক আত্মীয়র কাছে ছিল দুই হাজার টাকা। কিন্তু যশোর নিতে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়াই লাগবে তিন হাজার টাকা। পরে এই প্রতিবেদক তার অ্যাম্বুলেন্স ভাড়ার বাকী টাকা এবং জরুরি ওষুধ সরবরাহ করেন।

শিশুর চাচাতো ভাই আহাদ বলেন, চিকিৎসায় অনেক টাকা লাগবে। কিন্তু ওর বাবারতো অত টাকা নেই। তিনবেলা ঠিকমতো ভাতইতো জোটে না। শিশুটি বর্তমানে যশোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শিশুটিকে সুস্থ করতে  সহযোগিতা প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।  সহযোগিতায় ইচ্ছুকদের তার ব্যাক্তিগত মোবাইল নম্বরে (০১৪০-৮০৮২৩৭৬) যোগাযোগের জন্য অনুরোধ করেন।