স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রি : অভিযুক্ত উজ্জলকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন

অপরাধ ও আইন দেশের খবর যশোর জেলার খবর

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি।।

যশোরের অভয়নগরে স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রির অভিযোগে দায়ের করা মানব পাচার মামলার আসামি উজ্জল শিকদারকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টায় উপজেলার শুভরাড়া ইউনিয়নের ইছামতী বাজারের গলাচিপা মোড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। ইউনিয়নবাসীর আয়োজনে ঘন্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে দুই শতাধিক গ্রামবাসী অংশগ্রহণ করেন। এসময় বক্তব্য রাখেন, শুভরাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বিশ্বাস, ইউপি সদস্য মাহামুদুর রহমান বেলা, রফিকুল ইসলাম, সুফিয়া খানম, সাবেক ইউপি সদস্য জগদিশ শিকদার, শিক্ষক দীপংকর মন্ডল, সমাজসেবক আব্দুল গফ্ফার শিকদার, আব্বাস শিকদার প্রমুখ।বক্তারা বলেন- ভ্যান চালিয়ে জীবন-জীবিকা করতে থাকা উজ্জ্বল শিকদার গত চার বছর ভারতে নারী পাচার করে বিপুল অর্থের মালিক হয়েছেন। কিনেছেন জমি, নির্মাণ করেছেন পাঁকা বাড়ি। শুরু করেছেন ব্যবসা। নারী পাচারের এক পর্যায়ে নিজ স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ভারতের ব্যাঙ্গালোর অসকোট পতিতালয়ে মোটা অংকের টাকায় বিক্রি করেন। এই নারী পাচারকারী প্রতারক উজ্জ্বল শিকদারকে দ্রæত সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তারা ।

উল্লেখ্য, অধিক আয়ের আশায় ২০২০ সালের ২ ফেব্রুয়ারি উজ্জ্বল শিকদার তার স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ফুসলিয়ে ভারতের ব্যাঙ্গালোর শহরে নিয়ে যান। কিছুদিন পর তার স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ব্যাঙ্গালোর অসকোট পতিতালয়ে  বিক্রি করে সে পালিয়ে দেশে ফিরে আসেন। ২৩ দিন পতিতালয়ে মানবেতর জীবন-যাপন শেষে গত ২৫ ফেব্রæয়ারি ছালমা খাতুন পতিতালয়ের এক দারোয়ানের সহযোগিতায় চোরাই পথে বেনাপোল হয়ে দেশে ফেরেন।

এরপর স্থানীয় পর্যায়ে কোন বিচার না পেয়ে ছালমা খাতুন চলতি বছরের মার্চ মাসে স্বামী উজ্জ্বল শিকদারের বিরুদ্ধে যশোরে মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতে মামলা করেন। মামলা নং- ০৩/২০২০।