মাছ শিকারে জয় দুই লাখ টাকা !

দেশের খবর বিনোদন

চারিদিক ডেস্ক।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় ছিপ (বড়শি) দিয়ে মাছ শিকার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) উপজেলার কালীকচ্ছ ইউনিয়নের কলেজপাড়ার কলেজ পুকুরে দিনভর এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।সরাইল ডিগ্রি কলেজ পুকুর মৎস্য চাষ সমিতি নামের একটি সংগঠন এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। প্রতিযোগিতায় পৌনে চার কেজি ওজনের রুই মাছ শিকার করে প্রথম পুরস্কার দুই লাখ টাকা জিতেছেন শৌখিন মৎস্যশিকারি শৈলেশ বিশ্বাস। প্রতিযোগিতার আয়োজক ও স্থানীয় সূত্র জানায়, এদিন সকাল ছয়টা থেকে বিকেল ছয়টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় ৪০ জন শৌখিন মৎস্যশিকারি অংশ নেন। তাঁরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিভিন্ন উপজেলা ছাড়াও হবিগঞ্জ, গাজীপুর, নরসিংদী, ময়মনসিংহ, নারায়ণগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ও সিলেট জেলা থেকে এসেছেন। এ জন্য প্রত্যেক প্রতিযোগীকে ১৭ হাজার টাকা করে আয়োজকদের কাছে জমা দিতে হয়েছে। প্রতিযোগীদের জন্য ছিল ৪ লাখ ৬২ হাজার টাকার সাতটি পুরস্কার। এর মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা সদরের বণিকপাড়ার শৈলেশ বিশ্বাস ৩ কেজি ৭৫০ গ্রাম ওজনের রুই মাছ শিকার করে প্রথম হয়েছেন। পুরস্কার হিসেবে তিনি পেয়েছেন দুই লাখ টাকা। একই উপজেলার কালীকচ্ছ গ্রামের রাকিব খান ৩ কেজি ৭৫০ গ্রাম ওজনের কাতলা মাছ শিকার করে দ্বিতীয় হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন এক লাখ টাকা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের মেড্ডা এলাকার আয়েত আলী ৩ কেজি ৫৮০ গ্রাম ওজনের রুই মাছ শিকার করে তৃতীয় হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৫০ হাজার টাকা। মৎস্য শিকার প্রতিযোগিতা দেখতে পুকুরের চারদিকে প্রচুর দর্শকের সমাগম ঘটে। পুকুরটি সরাইল সরকারি কলেজ ও কালীকচ্ছ পাঠশালা উচ্চবিদ্যালয়ের। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুটি থেকে তিন বছরের জন্য ১০ লাখ টাকায় ইজারা নিয়েছেন সরাইল উপজেলা সদরের বড্ডাপাড়া গ্রামের ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমানসহ পাঁচজন। হাবিবুর রহমান বলেন, তাঁরা প্রতিবছর অন্তত ছয়বার মৎস্য শিকার প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকেন। শীত এলে ছিপ দিয়ে এ রকম মৎস্য শিকার প্রতিযোগিতা করা সম্ভব হয় না। ফলে চলতি বছর এ রকম আরও আয়োজন হতে পারে।গত ৮ আগস্ট একই রকম আসর বসেছিল উপজেলা সদরের দেওয়ান দিঘিতে। ১১ সেপ্টেম্বর এ রকম প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে সরাইল সরকারি কলেজসংলগ্ন দিরেশ দিঘিতে।

-প্রথম আলো