যশোরে ইজিবাইক চালকদের দৌরাত্ম্য রুখবে কে?

চারিদিক স্পেশাল যশোর জেলার খবর

যশোর প্রতিনিধি।।
যশোরে পৌরসভা ও পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশ মানছেন না ইজিবাইকের চালকেরা। করোনার অজুহাতে ভাড়া বৃদ্ধি করলেও মানা হচ্ছেনা সামাজিক দূরত্ব। বৃদ্ধিকৃত ভাড়া না কমানোর ফলে যাত্রীরা বিক্ষোভ প্রকাশ করছেন। যাত্রীদের অভিযোগ, যে সব ইজিবাইকের চালকেরা পৌরসভা ও পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশ না মেনে তিন জনের বেশী যাত্রী পরিবহণ করছেন- তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।
সরেজমিনে দেখাগেছে,যশোর উপশহর খাজুরা বাসস্ট্যান্ড থেকে যশোর সদর হাসপাতালের সামনে পর্যন্ত ভাড়া ৫ টাকার স্থলে করোনা ভাইরাসের অজুহাতে নেওয়া হচ্ছে ১০ টাকা। অথচ মানা হচ্ছেনা সামাজিক দূরত্ব। আবার তিনজনের স্থলে নেওয়া হচ্ছে ৫ থেকে ৬ জন যাত্রী। উপশহর থেকে পালবাড়ী,দড়াটানা,মণিহার বাসস্ট্যান্ড,দড়াটানা থেকে চাঁচড়া চেকপোষ্ট,চৌরাস্তা থেকে নতুন টার্মিনাল,রেলষ্টেশন, মণিহার বাসস্টান্ড,ঝুমঝুমপুর, মুড়োলী,দড়াটানা থেকে পালবাড়ী মোড়সহ শহরের বিভিন্ন রুটে চলাচলরত ইজিবাইকের চালকেরা করোনা ভাইরাসের অজুহাতে ৫ টাকার ভাড়া নিচ্ছেন ১০ টাকা। ভাড়া বৃদ্ধির পাশাপাশি করোনা প্রতিরোধে পৌরসভা ও পুলিশ প্রশাসন কর্তৃক নিয়ম তান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় যাত্রী পরিবহনের কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। ভাড়া বৃদ্ধি থাকলেও যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে আগের নিয়মে প্রতিটি টিপে ৫ থেকে ৬জন যাত্রী উঠানো হচ্ছে। বুধবার সকালে উপশহর থেকে যশোর সদর হাসপাতালের সামনে ইজিবাইক থেকে নেমে শফিকুর রহমান নামে একজন যাত্রী অভিযোগ করে বলেন,তার ইজিবাইকে সামাজিক দূরত্ব না মেনে চালক উপশহর খাজুরা বাসস্টান্ড থেকে ৬ জন যাত্রী তুলে দড়াটানায় এনে নামিয়ে দিলেন। অথচ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ডাবল। যেকারনে চালক আর যাত্রীদের সাথে হাতাহাতির মতো ঘটনা ঘটছে।অবিলম্বে যশোরে নিয়ন্ত্রহীন চলাচলরত ইজিবাইকের চালকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য যশোর পৌরসভার মেয়রসহ পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগি যাত্রীরা।