হাসপাতালে ভর্তি পপ তারকা ফেরদৌস ওয়াহিদ

বিনোদন

চারিদিক ডেস্ক।।
শরীরে প্রচণ্ড জ্বর আর বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতা নিয়ে বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) সন্ধ্যায় রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন পপ তারকা ফেরদৌস ওয়াহিদ।সেখানে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফেরদৌস ওয়াহিদের ব্যক্তিগত সহকারী মোশারফ।
জানান, প্রায় ১০ দিন ধরে জ্বরে পুড়েছেন এই শিল্পী। করোনাভাইরাস সন্দেহে শুরুতেই করিয়েছেন করোনাভাইরাস টেস্ট। ফলাফল নেগেটিভ আসে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শে বাসাতেই ছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিএমএইচ-এ ভর্তি করা হয়।
এই বিষয়ে ফেরদৌস ওয়াহিদের ছেলে হাবিব ওয়াহিদের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে সহকারী মোশাররফ জানান, সপ্তাহখানেক আগে করোনা সন্দেহে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ফেরদৌস ওয়াহিদের। ফলাফল নেগেটিভ আসে। কিন্তু জ্বর কমছিলো না। তাই চিকিৎসকের পরামর্শে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিল্পীকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, সিএমএইচ-এ ভর্তি করার পর বৃহস্পতিবার রাতেই করোনা টেস্টের জন্য আবার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।
৬৭ বছর বয়সী এ সংগীতশিল্পী কয়েক বছর ধরে হৃদরোগ, উচ্চরক্তচাপ ও ডায়াবেটিসে ভুগছেন।
ফেরদৌস ওয়াহিদের সংগীত ক্যারিয়ার টানা পাঁচ দশকের। বলা যায় বাংলাদেশ সৃষ্টির সঙ্গে শিল্পী হিসেবে গানের ক্যারিয়ার শুরু করেন ফেরদৌস ওয়াহিদ। আরও স্পষ্ট করলে দেশে যে ক’জন শিল্পী পপ ঘরানার গান প্রতিষ্ঠা ও জনপ্রিয় করার পেছনে আজীবন ব্যয় করেছেন, তাদের মধ্যে অন্যতম তিনি।
ফেরদৌস ওয়াহিদের জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে- আমি এক পাহারাদার, মামুনিয়া, আগে যদি জানতাম, শোন ওরে ছোট্ট খোকা, আমি ঘর বাঁধিলাম প্রভৃতি।
–বাংলা ট্রিবিউন